Thursday 9th of December 06:40:02am

Dua-নবী করীম (স)-এর উম্মতের দোয়া

Dua-

নবী করীম (স)-এর উম্মতের দোয়া


আল্লাহ পাক যখন কোরআন মাজীদ নাযিল করলেন, তখন তিনি  ফরমালেন যে, কোরআনের ভিতর এমন কতগুলো আয়াত রয়েছে যাকে; “মোহকামাত” বলা হয়। তার অর্থ প্রকাশ্য। এ ছাড়া আরও কতিপয় আয়াত রয়েছে যাকে “মাতাশাবেহতা” বলা হয়। এর অর্থ একমাত্র  আল্লাহ পাকই জানেন এবং ঐ সমস্ত বিজ্ঞ ব্যক্তিগণ জানেন যাদের এ

 সম্পর্কে গভীর জ্ঞান রয়েছে। তাই এ ব্যাপার নিয়ে যারা ঘাটাঘাটি করে পরিশেষে সন্দেহ পোষণ করতে থাকে তারা অনেক সময় প্রকৃত পথ হতে সরে পরে। উত্তমগণের কাছে এ আয়াতে মুতাশাবেহাত একটি ঘোলাটে বস্তু বটে! কারণ তা নিয়ে অনেকে অনেক রকম অর্থ প্রকাশ করেছেন। তারা বলেন-


উচ্চারণঃ আমান্নাৰিহী কুল্লুম্মিন ইনদি রব্বিনা।

অর্থ : আমরা পবিত্র কোরআন মজীদের উপর ঈমান আনলাম এবং এ পবিত্র গ্রন্থের মধ্যে যত বিষয় রয়েছে সবই আমাদের প্রতিপালকের তরফ হতে এসেছে। এ কথা শুনে মুমেনগণ নিম্নের দোয়া করেছিলেন-

উচ্চারণ: রাব্বানা লাতুযিগ কুলুবানা বাদা ইয হাদাইতানা ওয়া  হাবলানা মিল্লাদুনকা রাহমাতান ইন্নাকা আনতাল ওয়াহহাব।

অর্থঃ হে আমাদের প্রতিপালক! আমাদের পথ প্রদর্শন করার পর আমাদের অন্তকরণকে তুমি  বাঁকা করিও না । আমাদেরকে তোমার পক্ষ হতে রহমত (করুনা) দান কর। নিশ্চয়ই তুমি মহান দাতা।


উচ্চারণ: রাব্বানা ইন্নাকা জামিউননাসি লিইয়াওমিল্লারাইবা ফিহি  ইন্নাল্লাহা লা ইউখলিফুল মিয়াদ।

 অর্থ : হে আমাদের প্রতিপালক! নিঃসন্দেহে তুমি ঐ দিন। (কিয়ামতের দিন) সকলকে একত্রিত করবে যে দিনের আগমনের কোনই সন্দেহ নেই। অর্থাৎ কেয়ামত অবশ্যই হবে নিশ্চয়ই আল্লাহ পাক তাঁর ওয়াদা খেলাফ করেন না।

উচ্চারণঃ রাব্বানা লাতুয়া’খিযনা ইন্নাসিনা আও আখ্তানা রাব্বানা ওয়ালা তাহমিল আলাইনা ইছরান কামা হামালতাহু আলাল্লাযীনা মিন ক্বাবলিনা।

অর্থঃ হে আমাদের রব! যদি আমরা বিস্মৃত হই বা ভুল করি তবে তুমি আমাদের ধরিও না। হে আমাদের রব! আমাদের পূর্ববর্তীদের  উপর যেমন গুরু দায়িত্ব অর্পণ করেছিলেন তেমন গুরু দায়িত্ব আমাদের উপর অর্পণ করিও না ।

---------------

শত্রুর উপর জয়ী হবার দোয়া


উচ্চারণঃ রাব্বানা ওয়ালা তুহাম্মিলনা মালা-তাক্বাতালানা বিহ। ওয়াফু আন্না ওয়াগফিরলানা ওয়ারহামনা আনতা মাওলানা ফানছুরনা  আলাল ক্বাওমিল কাফিরীন।

অর্থ : হে আমাদের রব! তুমি আমাদের প্রতি এমন গুরু দায়িত্ব চাপাইও না, যা বহন করার ক্ষমতা আমাদের নেই। আমাদের যাবতীয় পাপ মোচন কর এবং আমাদের ক্ষমা করে দাও এবং আমাদের প্রতি  দয়া কর। তুমিই আমাদের অভিভাবক। অতএব, তুমি আমাদেরকে কাফেরগণের মোকাবেলায় সাহায্য কর।

আল্লাহ তাআলা মানুষকে তার শক্তির বাইরে কিছু করতে বলেন না । আল্লাহ পাক পরম দয়ালু ও মেহেরবান! তাই মানুষ যখন কোন অপরাধ করে, ভুল ত্রুটি যাই হোক না কেন, আল্লাহ পাকের নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করলে অবশ্যই তিনি তা মাফ করে দেন।