Wednesday 20th of October 06:12:09am

প্রধানমন্ত্রী নিউইয়র্কের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেন এবং ২৪ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘে ভাষণ দেবেন

প্রধানমন্ত্রী নিউইয়র্কের উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করেন এবং ২৪ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘে ভাষণ দেবেন


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে নিউইয়র্কের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেছেন।


প্রধানমন্ত্রী এবং তার সফরসঙ্গীরা ১৭ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সকালে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি চার্টার্ড ফ্লাইটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করেন।


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৬ তম অধিবেশনে যোগ দিতে আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর রবিবার নিউইয়র্কে আসবেন। তিনি বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেবেন। প্রতিনিধি দলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও থাকবেন এ কে আব্দুল মোমেন এবং প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম সহ অনেকেই।


এবারের অধিবেশনের প্রতিপাদ্য হচ্ছে "কভিড-১৯ থেকে পুনরুদ্ধারের মাধ্যমে একটি স্থিতিশীল ব্যবস্থা গড়ে তোলা, টেকসই পুনর্গঠন, বিভিন্ন চাহিদার প্রতি সাড়া দেওয়া, মানবাধিকারকে সম্মান করা এবং জাতিসংঘকে পুনরুজ্জীবিত করা।"


জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৬  তম অধিবেশন ২০২১ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর শুরু হয়েছে। তবে, উচ্চ পর্যায়ের অধিবেশনের সাধারণ বিতর্ক ২১  সেপ্টেম্বর শুরু হবে। এটি ২৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে।


বাংলাদেশে জাতিসংঘ মিশনের একটি বার্তা অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৪ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে ভাষণ দেবেন। বরাবরের মতো প্রধানমন্ত্রী বাংলায় ভাষণ দেবেন। তিনি বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রগতি, আর্থ-সামাজিক অর্জন এবং স্বাস্থ্য খাতে সাফল্য তুলে ধরবেন। একই সময়ে, বিশ্ব শান্তি, নিরাপদ অভিবাসন, করোনাভাইরাস ভ্যাকসিনের ন্যায়সঙ্গত বিতরণ, বৃহৎ পরিসরে করোনা ভ্যাকসিন উৎপাদনের পেটেন্ট খোলা, ফিলিস্তিনি এবং জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের নাগরিক সংকট, জলবায়ু ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠার বিষয়গুলি।



আগামী সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) শেখ হাসিনা যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী এবং জাতিসংঘের মহাসচিবের আমন্ত্রণে জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে যোগ দেবেন। একই দিনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে তিনি জাতিসংঘ সদর দপ্তরে একটি গাছ লাগাবেন। তিনি বুধবার, সেপ্টেম্বর ২২ তারিখে যুক্তরাষ্ট্রের আয়োজিত হোয়াইট হাউস গ্লোভার ক্যাভিড -১৯  শীর্ষ সম্মেলনে ভাষণ দেবেন। একই দিনে প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ আয়োজিত রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে একটি উচ্চ পর্যায়ের সভার অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন। তিনি বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের খাদ্য সম্মেলনেও ভাষণ দেবেন।


প্রতিবছরের মতো যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত বাংলাদেশীরা প্রধানমন্ত্রীর সম্মানে সংবর্ধনার আয়োজন করেছেন। কাভিড -১৯  এর কারণে, প্রধানমন্ত্রী সেই অনুষ্ঠানে ভার্চুয়াল ভাষণ দেবেন।